বাস থেকে নামার পর ঢাবি ছাত্রীকে ধর্ষণ

বাস থেকে নামার পর ঢাবি ছাত্রীকে ধর্ষণ
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) দ্বিতীয় বর্ষের এক ছাত্রী ধর্ষণের শিকার হয়েছেন। তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজে (ঢামেক) হাসপাতালের ওয়ানস্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) ভর্তি করা হয়।
রাতেই দেখতে ঢামেক হাসপাতালে যায় ঢাবি প্রক্টর অধ্যাপক গোলাম রাব্বানী, শিক্ষক সাদেকা হালিমসহ তার সহপাঠী। ঢাবি প্রক্টরিয়াল বোর্ডের কয়েকজন তার সঙ্গে কথা বলেছেন।
রোববার (৫ জানুয়ারি) সন্ধ্যা সাতটার দিকে রাজধানীর কুর্মিটোলা বাসস্ট্যান্ডের অদূরে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার শিকার তরুণী ঢাবির রোকেয়া হলের ছাত্রী।
বিষয়টি নিশ্চিত করে ঢামেক হাসপাতাল পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ এএসআই আব্দুল খান জানান, মধ্যরাতে ছাত্রীটিকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বর্তমানে ঢামেকের দোতলার একটি ওয়ার্ডে ভর্তি রয়েছেন।
তার সহপাঠীরা জানান, রাত ১০টার দিকে তার জ্ঞান ফিরলে নিজেকে নির্জন স্থানে দেখতে পান। এরপর সড়কে উঠে বাসায় না গিয়ে সিএনজি ডেকে ঢামেকে চলে আসেন। সহপাঠীরা তাকে ওসিসিতে ভর্তি করান। তার শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।
পুলিশ ও বিশ্ববিদ্যালয় সূত্র জানায়, সন্ধ্যা সাড়ে ৫টায় টঙ্গী রুটের ঢাবির দোতলা ‘ক্ষণিকা’ বাসে করে ওই ছাত্রী বাসায় ফিরছিলেন। তিনি সন্ধ্যা সাতটার দিকে কুর্মিটোলা বাসস্ট্যান্ডে বাস থেকে নেমে পড়েন। এসময় অজ্ঞাত পরিচয় এক যুবক তার মুখ চেপে ধরে সড়কের পেছনে নির্জন স্থানে নিয়ে যায়। এরপর তাকে ধর্ষণ ও নির্যাতন করা হয়ে এক পর্যায়ে জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন।
প্রক্টর অধ্যাপক গোলাম রাব্বানী বলেছেন, এমন ঘটনা আমরা খুবই মর্মাহত। লিগ্যাল ব্যবস্থা নেয়া হবে। যেহেতু ঘটনা ক্যাম্পাসের বাইরে সেজন্য পুলিশ ব্যবস্থা নেবে। ঘটনা তদন্তে ঢাবি প্রশাসন সবরকম সহায়তা করবে।

 

Add Comment